পাহাড় আর মেঘের রাজ্য শিলং

ঘুরে আসুন প্রাচ্যের স্কটল্যান্ড হিসেবে পরিচিত ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলং ।

ঢাকা-শিলং-ঢাকা
৪ রাত, ৪ দিনের প্যাকেজ
ভ্রমণ – প্রতি বৃহস্পতিবার রাত ৯টা
প্যাকেজ মূল্য জনপ্রতি ৯৫০০ টাকা।

রাত ০১: ঢাকা-তামাবিল
রাত ৯ টায় ঢাকা থেকে তামাবিল সীমান্তের উদ্দেশ্য যাত্রা।

দিন ০১: তামাবিল-শিলং
বর্ডার এ পৌঁছানোর পর বাংলাদেশ এবং ভারতের ইমিগ্রেশন ও কাষ্টমস শেষ করে ১৮ কিলোমিটারের মধ্যে সাইটসিয়িং। সোনেংপেডেং, বড়হিল ফলস্, পান্থুমাই ফলস্, মাওলীনঙ্গ ক্লিন ভিলেজ, লিভিং রুট ব্রিজ দেখে শিলং এর উদ্দেশ্য যাত্রা।

রাত ০২: শিলং
সাইডসিয়িং শেষ করে শিলং এ এসে সেই দিনের মত রাত্রী যাপন।

দিন ০২: শিলং
নিজের মতো করে সেদিন ঘোরাঘুরি, শপিং অথবা গুয়াহাটিও ঘুরে আসা যেতে পারে(নিজ খরচে)।

রাত ০৩: শিলং
নিজের মতো ঘোরাঘুরি, কেনাকাটা অথবা গুয়াহাটি ঘুরে এসে সেই দিনের মত রাতযাপন।

দিন ০৩: শিলং-চেরাপুঞ্জী
সকাল ৭টার মধ্যে সকালের নাস্তা শেষ করে চেরাপুঞ্জীর উদ্দেশ্য যাত্রা। সেখানে এলিফ্যান্ট ফলস্, চেরাপুঞ্জি, নোয়াকালিকাই ফলস্, সেভেন সিস্টার ফলস্, ওয়াকাবা ফলস্, ইকো পার্ক, রামকৃষ্ণ মিশন, মৌসুমি কেইভ ঘুরে দেখা।

রাত ০৪: শিলং
চেরাপুঞ্জী ঘুরে এসে সেই দিনের মতো রাত্রী যাপন।

দিন ০৪: শিলং-ঢাকা
সকালে নাস্তা শেষ করে সকাল ৭টার মধ্যে শিলং থেকে ঢাকার উদ্দেশ্য ফিরতি যাত্রা। রাত ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে ঢাকায় পৌঁছানো।

প্যাকেজে মূল্যে যা থাকছে
১) ঢাকা-শিলং-ঢাকা বাস সার্ভিস
২) শিলং এ ৩ রাত হোটেল
৩) ট্রাভেল ট্যাক্স
৪) সাইটসিয়িং ট্রান্সপোট খরচ
৫) সাইটসিয়িং এন্ট্রি ফি
৭) ভিসা প্রক্রিয়াকরণ
৮) বর্ডার স্পিড মানি

প্যাকেজ মূল্যে যা থাকছে না
১) খাবার
২) ডি.এস.এল ক্যামেরা এন্ট্রি ফি

সঙ্গে যা যা রাখতে হবে
১) চাকুরীজীবি হলে অফিস প্রত্যয়ন পত্র
২) পাসপোর্ট এ ডলার ইনডোর্সমেন্ট

যোগাযোগ
শ্যামলী পরিবহন
প্রধান কার্যালয়ঃ ২৭/ক,শ্যামলী পিসি কালচার হাউজিং সোসাইটি, শ্যামলী, মোহাম্মাদপুর, ঢাকা-১২০৭
০১৭১৯১১৬৩৮৪, ০১৮৩৩২৯৭৯৭১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *