ঢাকা –রাজশাহী রুটে চালু হল বনলতা এক্সপ্রেস

ঢাকা-রাজশাহী রুটে চালু হলো বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন। ২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার লাল-সবুজ রঙের সুসজ্জিত ট্রেনটির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ঢাকা-রাজশাহী রুটে চালু হলো বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন। ২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার লাল-সবুজ রঙের সুসজ্জিত ট্রেনটির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আকাশপথের বাইরে যেকোনো মাধ্যমে এটিই এখন রাজশাহী ও ঢাকার মধ্যে যোগাযোগের দ্রুততম মাধ্যম।

নতুন এই ট্রেনটির ব্রডগেজ কোচগুলো ইন্দোনেশিয়ায় তৈরি। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের অর্থায়নে “বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য মিটারগেজ ও ব্রডগেজ প্যাসেঞ্জার ক্যারেজ সংগ্রহ” প্রকল্পের আওতায় আমদানিকৃত কোচগুলো ব্যবহার করা হয়েছে এতে।

বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে বেশ কিছু আধুনিক সুবিধা রয়েছে। এই প্রথম ট্রেনটিতে সংযোন করা হয়েছে বায়ো টয়লেট। এর ফলে মানববর্জ আর রেললাইনের ওপর পড়বে না। প্রতিবন্ধী যাত্রীদের চলাচলের সুবিধায় রয়েছে প্রশস্ত দরজা ও নির্ধারিত আসন। প্রতিটি কোচ স্টেইনলেস স্টিলের তৈরি, উচ্চ গতি উপযোগী ও আধুনিক যাত্রী সুবিধাসম্বলিত। তাপানুকূল কোচগুলোতে আধুনিক ও উন্নতমানের রুফ মাউন্টেড এয়ার কন্ডিশনার ইউনিট ও এয়ার কার্টেইন রয়েছে। এছাড়াও ট্রেনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে জার্মানিতে তৈরি আধুনিক এয়ার ব্রেক সিস্টেম, বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী এলইডি বাতি। সুইং ডোরের পরিবর্তে এতে ব্যবহার করা হয়েছে স্লাইডিং ডোর। এছাড়া এই ট্রেনটিতে বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রথম নিজস্ব ক্যাটারিং এন্ড ট্যুরিজম সার্ভিসেস (বিআরসিটিএস) দ্বারা খাবার সরবরাহ করা হবে।

শুক্রবার ছাড়া প্রতিদিন ট্রেনটি রাজশাহী থেকে সকাল ৭টায় ছেড়ে ঢাকা পৌঁছাবে সকাল ১১.৪০টায় এবং ঢাকা থেকে বেলা ১.১৫টায় ছেড়ে রাজশাহী পৌঁছাবে সন্ধ্যা ৬টায়। এই ট্রেনের ভাড়া একই রুটে চলমান ট্রেনের ভাড়ার তুলনায় নন-স্টপ সার্ভিস চার্জ ১০% বেশি আরোপ করা হয়েছে।  খাবার মূল্য ১৫০ টাকা সহ শোভন চেয়ারের টিকিট ৫২৫ টাকা এবং এসি চেয়ারের টিকিট ৮৭৫ টাকা।

১২টি কোচ নিয়ে চলাচল করবে ট্রেনটি। এতে মোট আসন সংখ্যা ৯২৮। এর মধ্যে স্নিগ্ধা (এসি চেয়ার) ১৬০টি , শোভন চেয়ার ৬৪৪টি, খাবার গাড়িতে আসন ১০৮টি এবং পাওয়ার কারে ১৬টি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *