ঢাকার কাছের ৩০টি রিসোর্ট

মেঘমাটি ভিলেজ রিসোর্ট, ভালুকা, ময়মনসিংহ। ছবি: ট্রাভেল টক

ট্রাভেল টক ডেস্ক
ব্যস্ত যান্ত্রিক জীবন থেকে কিছুটা সময় প্রকৃতির সান্নিধ্যে কাটানোর জন্য বেছে নিতে পারেন ঢাকার আশপাশের কোন রিসোর্টকে। ঢাকার কাছাকাছি দূরত্বে অবস্থিত ৩০টি রিসোর্ট নিয়ে ট্রাভেল টকের এই ফিচার।

ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পা
গাজীপুর জেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের নলজানি গ্রামে অবস্থিত ভাওয়াল রিসোর্ট এন্ড স্পা । প্রায় ৬৫ একর জায়গার উপর অবস্থিত এই রিসোর্টটিতে ৫ টি জোনে রয়েছে ৬১টি কটেজ। সবধরেণের আধুনিক সুযোগ সুবিধা সমৃদ্ধ এ রিসোর্টটিতে গড়ে তোলা হয়েছে নৈসর্গিক পরিবেশ। যোগাযোগ- ০১৮৭১০০৪০০৭

মেঘমাটি ভিলেজ রিসোর্ট
ময়মনসিংহের ভালুকায় প্রায় চৌদ্দ বিঘা জায়গাজুড়ে রয়েছে মেঘমাটি ভিলেজ রিসোর্ট। এ যায়গাটিতে গেলে নামের স্বার্থকতা খুঁজে পাবেন যে কেউ। মেঘমাটিতে আছে আধুনিক মানের একটি দ্বিতল ভিলার সঙ্গে চমৎকার সুইমিং পুল। এছাড়া আছে আধুনিক মানের ওয়াটার কটেজ আর সবুজে মোড়ানো বিশাল মাঠ, মাঠের চারপাশে আছে নানান ফলের বাগান। যোগাযোগ- ০১৬১৩৫৫৫৯৫৩, ০১৯১১৭৭১১৫৫

জল ও জংগলের কাব্য
আছে জল ও জঙ্গলের কাব্য। সবুজ প্রকৃতির মাঝে প্রায় ৯০ বিঘা জমির ওপর গড়ে ওঠা জল ও জঙ্গলের কাব্যে আছে কিছু কটেজ। জমিয়ে আড্ডা দেয়ার চন্য পানির উপরে আছে মাচান। বিলে ঘুরে বেড়ানোর জন্য আছে নৌকার ব্যবস্থা। এছাড়া এখানকার প্রধান আকর্ষণ এর নানান পদের গ্রামীণ খাবার। যোগাযোগ- ০১৭৯২৯২৯৭২৭, ০১৯১৯৭৮২২৪৫

নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্ট
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রাজবাড়ি এলকায় শিল্পীদম্পতি তৌকির-বিপাশা গড়ে তুলেছেন নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্ট। প্রায় ২৫ বিঘার জায়গাজুড়ে রিসোর্টটিতে আছে দিঘি, কৃত্রিম ঝরনা, সভাকক্ষ, সুইমিংপুলসহ নানান সুবিধা। যোগাযোগ- ০২৯৮৩৫১৭৩, ০১১৯২১৫০৫৬৩, ০১৭৭১৭৯৯৪১০

উৎসব পিকনিক স্পট ও রিসোর্ট
এর অবস্থান গাজীপুরের হোতাপাড়ায়। এখানে বেবেশ বড়সড় জায়গাজুড়ে আছে বনভোজন করার মতো সব ব্যবস্থা। উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ হলো এর ট্রি হাউস। গাছের মাথায় মজবুত করে তৈরি এ বাড়িতে চড়ে বসে জমিয়ে আড্ডা দেয়া যায়। ঢাকা থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরে ঢাকা ময়মনসিংহ সড়কের হোতাপাড়ার কাছেই এ বনভোজন কেন্দ্রটি। ৬০০ জনের এক সঙ্গে বনভোজনের সব ব্যবস্থা আছে এখানে। ১৫ এপ্রিল থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত ছোট পরিসরের বনভোজন ও অবাকশ যাপনে পাওয়া যাবে বিশেষ ছাড়। যোগাযোগ- ০১৭১৩২৬০৪৭১, ০২৮৬২৬৩৭৬

গ্রীনটেক রিসোর্ট
গাজীপুর জেলার ভবানীপুরে প্রায় ৬ একর জায়গা নিয়ে অবস্থিত গ্রীনটেক রিসোর্ট। বেশ কিছু কটেজ, অডিটেরিয়াম, কনফরেন্স রুম, সুমিং পুল ছাড়াও এখানে রয়েছে নানা রকম খেলাধূলার ব্যবস্থা। যোগাযোগ- ০১৭১৫১০৫৭৭০, ০১৯১৯৩১৮০০৯

শাহ মেরিন রিসোর্ট
মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলার জমিরতা ইউনিয়নে ধলেশ্বরী নদীর তীরে রয়েছে শাহ মেরিন রিসোর্ট। গাবতলীর আমিনবাজার ব্রিজ থেকে এ রিসোর্টের দূরত্ব প্রায় ১৩ কিলোমিটার। রিসোর্টে অবকাশ যাপন, পিকনিক ছাড়াও এখানে আছে ধলেশ্বরী নদীতে নৌ ভ্রমণের ব্যবস্থা। যোগাযোগ- ০১৬১২৩১৮০০৯,০১৯১৯৩১৮০০৯

রিভেরী হলিডে রিসোর্ট
গাজীপুরের সালনা এলাকায় রিসোর্ট ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কের পাশে অবস্থিত রিভেরী হলিডে রিসোর্ট। প্রায় তিন একর জায়গাজুড়ে অবস্থিত এ রিসোর্টটিতে অবকাশ যাপন ছাড়াও রয়েছে পিকনিকের সব সুবিধা। যোগাযোগ- ০১৭০৫৫৬৬৩৩৫-৬

সারাহ রিসোর্ট
গাজীপুর জেলার রাজাবাড়ী এলাকায় প্রায় ২০০ বিঘা জমির উপর অবস্থিত সারাহ রিসোর্ট। বেশ কয়েকটি কটেজ ছাড়াও এখানে রয়েছে সুইমিং পুল, মাড হাউজ, নানা রকম খেলাধূলার ব্যবস্থা। বনভোজনের জন্য আছে আলাদা জায়গা। যোগাযোগ- ০১৯৮০-০০৩০০০

ছুটি রিসোর্ট
ভাওয়াল জাতীয় উদ্যান ঘেঁষে প্রায় ৫০ বিঘা জায়গাজুড়ে গাজীপুরে সুকুন্দি গ্রামেআছে ছুটি রিসোর্ট। গ্রামীণ আবহে অবকাশ যাপনের জন্য উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে এ রিসোর্ট। যোগাযোগ- ০১৭৭৭১১৪৪৮৮, ১৭৭৭১১৪৪৯৯

রাঙ্গামাটি ওয়াটারফ্রন্ট রিসোর্ট
গাজিপুরের শফিপুরে আছে আধুনিক রিসোর্টটি। সবুজ প্রকৃতির মাঝে এখানে আছে আধুনিক কটেজ, সুইমিং পুল, বনভোজন কেন্দ্র, সভাকক্ষ, রেস্তোঁরাসহ নানান সুবিধা। এছাড়া এখানে আসা অতিথিরা পাবেন মাছ ধরা ও লেকে নৌভ্রমণেরও সুযোগ। জায়গাটিতে একসঙ্গে ২০০০ জনের বনভোজনের সবরকম ব্যবস্থা আছে। এছাড়া শিশুদেও বিনোদনের জন্য বেশ কিছু রাইডও আছে রাঙ্গামাটিতে। যোগাযোগ- ০১৮১১৪১৪০৭৪, ০১৭১২১৭৭৭০

দিপালি পিকনিক ও শুটিং স্পট
গাজীপুরের হোতাপাড়ায়র হাটখোলা বাজারে প্রায় ছয় একর জমি নিয়ে প্রতিষ্ঠিত দিপালি পিকনিক ও শুটিং স্পট। মনোররম প্রাকৃতিক পরিবেশের মাঝে এখানে আছে সুইমিং পুল, পুকুর। যোগাযোগ- ০১৭৪৬২০৮৩৪৯

আনন্দপার্ক রিসোর্ট
গাজীপুরের কালিয়াকৈরের সফিপুরে প্রায় ৬০ বিঘা জায়গাজুড়ে আছে আনন্দপার্ক রিসোর্ট। কটেজ ছাড়াও এখানে আছে বনভোজনের সবরকম ব্যবস্থা। এ রিসোর্টে আছে তিনটি স্বতন্ত্র বনভোজন কেন্দ্র, ছয়টি আধুনিক কটেজ , সুইমিং পুল ইত্যাদি। যোগাযোগ- ০২৯১২৫৭৭৮, ০১৭৪৩৮৩৮১২৩

আরশিনগর হলিডে রিসোর্ট
গাজীপুরের ভাওয়াল এলাকায় অবস্থিত বনভোজন কেন্দ্র ও রিসোর্ট। ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানের পাশে এ রিসোর্টে আছে আধুনিক সব সুযোগ সুবিধা। যোগাযোগ- ০২৯৩৪৪৮৮৯, ০১৭৩২৩৫৪০০৭, ০১৯২৩১১৭০৫৬

হ্যাপি ডে ইন
গাজীপুরের ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানের বিপরীত পাশে এটি একটি মূলত বনভোজন কেন্দ্র। যোগাযোগ- ০১৯৩৯-০৪৭৫৮৬-৮

অরণ্যবাস বনভোজন কেন্দ্র
গাজীপুরের পুবাইলে বিলাসারা গ্রামে বনভোজন কেন্দ্র অরণ্যবাস। যোগাযোগ- ০১৭১১৪৭৭৪৬৮

হাসনাহেনা পিকনিক স্পট
টঙ্গী থেকে প্রায় আট কিলোমিটার দূরে গাজীপুরের পুবাইল কলেজগেটে অবস্থিত হাসনাহেনা পিকনিক স্পট। পারিবারিক বনভোজনের জন্য এটি একটি আদর্শ যায়গা। যোগাযোগ- ০১১৯৯৮৭৫৫৭৬, ০১৯১১৪৯৫১২৩

ড্রিম স্কয়ার
গাজীপুরের মাওনায় ১২০ বিঘা জমির ওপর নির্মিত রিসোর্ট। নানান প্রজাতির ফলজ, বনজ ও ঔষধি গাছের সমাহার আছে যায়গাটিতে। গ্রাম বাংলার নানান নিদর্শনও দেখা যাবে এখানে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ হলো তেলের ঘানি, গরুর খামার, মাছ চাষ, বায়োগ্যাস প্লান্ট ইত্যাদি। যোগাযোগ- ০১৭৫৫৬০৩৩১০, ০১৭৫৫৬০৩৩১১

অঙ্গনা
গাজীপুরের কাপাসিয়ায় সূর্যনারায়ণপুর গ্রামে অবস্থিত অঙ্গনা রিসোর্ট। প্রায় ১৮ বিঘা জায়গাজুড়ে লালমাটির টিলাঘেরা যায়গায় এ রিসোর্ট। এখানে আছে খেলার মাঠ, বড় বড় পুকুর আর জলাশয়। সুইমিং পুলও আছে অঙ্গনায়। এছাড়া এখানকার ডিয়ার পার্কে আছে বেশ কিছু চিত্রা হরিণ। যোগাযোগ- ০১৭১১৫২৭৩৭৩, ০১৭১১১৮২৬২৬

সোহাগপল্লী
১১ একর সবুজে ঘেরা জায়গাজুড়ে সোহাগ পল্লী রিসোর্ট। এ রিসোর্টের প্রধান আকর্ষণ কৃত্রিম লেকের উপর ঝুলন্ত সাঁকো। এ লেকের স্বচ্ছ পানিতে নানা রকম মাছও আছে। এখানে আছে কয়েকটি ভাল মানের কটেজ। যোগাযোগ- ০১৭১২০৪৯৯০৩-৪, ০১৬১২০৪৯৯০৩

সাবাহ গার্ডেন
গাজীপুরের বাঘারবাজারে প্রায় ৩৬ বিঘা জায়গাজুড়ে সাবাহ গার্ডেন রিসোর্ট। এ রিসোর্টটিতে নানান গাছপালার মাঝে আছে মনীষীদের প্রতিকৃতি। এছাড়া একটি পাঠাগারও আছে এ রিসোর্টে। যোগাযোগ- ০২৫৫০৩৫১৯৪, ০১৭১১৮৭৩৮৯৫

সী গাল
গাজীপুরের মাওনা এলাকার সিংগারদিঘি গ্রামে প্রায় ৪২ বিঘা জমির ওপর নির্মিত সী গাল রিসোর্ট। দেশি-বিদেশি নানা বৃক্ষে শোভিত এ যায়গাটি। এখানে আছে ১৮টি কটেজ। যোগাযোগ- ০১৭৩২৮৬৬৮৬৬, ০১৭১১০৫৭৪৮৫

সিজি ফিশিং রিসোর্ট
গাজীপুরের কালিগঞ্জে বড়নগর বাস স্টেশন থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে এ রিসোর্টটি। এ রিসোর্টের মূল বৈশিষ্ট্য অতিথিরা এখানে মাছ ধরার সুযোগ পাবেন। এছাড়াও এখানে ছোট ও বড়দের আলাদা সুইমিং পুল আছে। পুকুরে নৌ ভ্রমণও করতে পারবেন অতিথিরা। যোগাযোগ- ০১৭১৭৩৭৪৭০৪, ০১৮৩০১৬৬৫১১

গুলবাগিচা
সফিপুর আনসার একাডেমির কাছে গুলবাগিচা পিকনিক ও শুটিং স্পট। প্রায় ১৫ বিঘা জায়গার উপরে বিস্তৃত এ পাঁচটি কটেজ। ছোট লেকে প্যাডেল বোড চালানোর সুযোগ আছে এখানে। এছাড়া নানা রকম পাখিও আছে এখানকার খাচায়। যোগাযোগ- ০১৭১৬৬৩৩৫৬৬, ০১৭৩৩১৬৭৪১৩

পিএসসিসি রিসোর্ট
গাজীপুরের ভাদুনে আছে পুবাইল সোশিও কালচারাল সেন্টার বা পিএসসিসি। বনভোজন ও অবকাশ যাপনের নানান ব্যবস্থা আছে যায়গাটিতে। সবুজে ঢাকা বিস্তৃত এলাকাজুড়ে এ রিসোর্টে আছে লেক, খেলার মাঠ, খোলা প্রান্তর। যোগাযোগ- ০১৭৩০৭১০৩৪১, ০১৭০৩২৩৪৫৮৩

স্প্রিং ভ্যালি রিসোর্ট
গাজীপুরের সালনায় অবস্থিত স্প্রিং ভ্যালি রিসোর্ট। প্রায় ১২ বিঘা জমির ওপ র নির্মিত এ রিসোর্টটি। বেশ কিছু আধুনিক কটেজ ছাড়াও এখানে আছে সুইমিং পুল, খেলার জায়গা, পুকুরে মাছ ধরাসহ নানা রকম সুযোগ সুবিধা। যোগাযোগ- ০১৭৩৪৯৮৫৫৫৪ , ০১৮৭৩১১১৯৯৯

রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্ট
গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুরের ভবানীপুর বাজারের কাছে অবস্থিত রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্ট। ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানের পাশে এ রিসোর্টটি অবকাশ যাপনের জন্য আদর্শ জায়গা। যোগাযোগ- ০১৯১৯৩১৮০০৯, ০৯৬৮৯১১১৯৯৯

পদ্মা রিসোর্ট
মুন্সীগঞ্জের লৌহজংএ পদ্মার তীরে আছে এ রিসোর্ট। নদীর তীরের এ রির্সোটটিতে রয়েছে সুন্দর কিছু কটেজ। বর্ষা মৌসুমে পদ্মা রিসোর্টের কটেজগুলোর চারপাশ পানিতে ভরে যায়। আর শরতে চারপাশে ফোটে কাশফুল। সারা বছরই অবকাশ যাপনের সুন্দর জায়গা পদ্মা রিসোর্ট। যোগাযোগ- ০১৭১২১৭০৩৩০, ০১৬৮৯৭৭৭৪৪৪

মাওয়া রিসোর্ট
ঢাকা থেকে প্রায় ৩৮ কিলোমিটার দূরে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়া পুরাতন ফেরিঘাটের পাশেই এ রিসোর্ট। বিশাল দীঘির চারপাশে গড়ে ওঠা এ রিসোর্টটিতে আছে বেশ কয়েকটি কটেজ। যোগাযোগ- ০১৭১১০৫৭৯৪৭

মেঘনা ভিলেজ রিসোর্ট
মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলায় অবস্থিত মেঘনা ভিলেজ রিসোর্ট। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা সেতুর পূর্ব প্রান্তে এর অবস্থান। এখানকার কটেজে অবকাশ যাপন ছাড়াও রয়েছে পিকনিক করার সবরকম সুযোগ সুবিধা। যোগাযোগ- ০১৮১৭১০৪১২৬

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *